37°C°F Precipitation: 0% Humidity: 44% Wind: 10 km/h
Tuesday 23rd April 2024
পোর্টফোলিও ব্যবস্থাপনা
By admin

পোর্টফোলিও ব্যবস্থাপনা

পোর্টফোলিও কি?

একজন বিনিয়োগকারী তার বিনিয়োগযোগ্য অর্থ যেসকল ক্ষেত্রে যেমন স্টক, বন্ড, মিউচুয়াল ফান্ড ও অন্যান্য সিকিউরিটিজে বিনিয়োগ করেন তাকে একত্রে পোর্টফোলিও বলা হয়। পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে একজন বিনিয়োগকারীর সফলতার জন্য সঠিক উপায়ে পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট করার ধারণা থাকা খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।

পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট কি?

পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট হল বিনিয়োগ থেকে সর্বোচ্চ মুনাফা অর্জন করার জন্য বিনিয়োগের সঠিক মাধ্যমগুলো নির্বাচন করে সঠিক অনুপাতে বিনিয়োগযোগ্য অর্থ বরাদ্দকরণের একটি প্রক্রিয়া। এর মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা তাদের দীর্ঘমেয়াদী উদ্দেশ্য এবং ঝুঁকি সহনশীলতার উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন বিনিয়োগের সঠিক মাধ্যম বাছাই করে নিয়মিত সেই বিনিয়োগগুলোকে পর্যবেক্ষণ করতে পারেন। এটি বিনিয়োগকারীদের তাদের বিনিয়োগের সামগ্রিক ঝুঁকি কমিয়ে সর্বোচ্চ মুনাফা অর্জন করতে সহায়তা করে।

পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টের উদ্দেশ্য

পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টের মূল উদ্দেশ্য হলো একজন বিনিয়োগকারীর আয়, বয়স, সময়সীমা এবং ঝুঁকি সহনশীলতা অনুযায়ী সেরা বিনিয়োগের বিকল্পগুলো বেছে নিতে সাহায্য করা। পোর্টফোলিও ম্যানেজারকে একজন বিনিয়োগকারীর চাহিদার উপর ভিত্তি করে একটি পোর্টফোলিও গঠন করার সময় বিনিয়োগের নিম্নলিখিত উদ্দেশ্যগুলো মাথায় রাখা উচিত।

পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টের উল্লেখযোগ্য উদ্দেশ্যগুলো হচ্ছে:

  • মূলধন বৃদ্ধি
  • বিনিয়োগ থেকে সর্বোচ্চ মুনাফা
  • ঝুঁকি হ্রাস করা
  • তারল্য নিশ্চিত করা
  • কর পরিকল্পনা ইত্যাদি

তাছাড়া পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টের সর্বোচ্চ সুবিধা পেতে বিনিয়োগকারীদের তাদের চাহিদা অনুসারে একটি পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টের ধরন বেছে নেওয়া উচিত।

পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টের ধরন

পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টকে দুটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা যায়:

ব্যবস্থাপনার ধরণের ভিত্তিতে- এক্টিভ এবং প্যাসিভ পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট।

  • এক্টিভ পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট: এক্টিভ পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টে পোর্টফোলিও ম্যানেজাররা বিনিয়োগকারীদের জন্য সর্বোচ্চ মুনাফা নিশ্চিত করতে সিকিউরিটিজ ক্রয় ও বিক্রয়ে সক্রিয়ভাবে জড়িত থাকেন। তাদের লক্ষ্য থাকে একটি নির্দিষ্ট বেঞ্চমার্ককে (সাধারণত স্টক মার্কেট সূচককে) ছাড়িয়ে যাওয়া। এক্টিভ পোর্টফোলিও ম্যানেজাররা তাদের সম্ভাব্য বিনিয়োগের সুযোগগুলোকে মূল্যায়ন করার জন্য নানা ধরনের আর্থিক ও পরিসংখ্যান মডেল ব্যবহার করেন। একটি নির্দিষ্ট বেঞ্চমার্ক বা সূচককে ছাড়িয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে এক্টিভ পোর্টফোলিও ম্যানেজারদের ঘন ঘন সিকিউরিটিজ ক্রয়-বিক্রয় করার প্রয়োজন হয়।
  • প্যাসিভ পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট: প্যাসিভ পোর্টফোলিও ম্যানেজারের লক্ষ্য হল বিনিয়োগকৃত সিকিউরিটিজ থেকে বাজারের সামগ্রিক সূচকের মতো একই মাত্রার মুনাফা অর্জন করা। তাই পোর্টফোলিও ম্যানেজার বাজারের সামগ্রিক পরিস্থিতির সাথে মিল রেখে সেই অনুযায়ী পোর্টফোলিও গঠন এবং পরিচালনা করেন। তিনি এমন সকল সিকিউরিটিজে বিনিয়োগ করেন যা একটি বিস্তৃত স্টক মার্কেট সূচককে ট্র্যাক করে। এই ধরণের পোর্টফলিও ম্যানেজমেন্টের ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীরা “বাই এন্ড হোল্ড” কৌশল গ্রহণ করে থাকেন।

পোর্টফোলিও ম্যানেজারের নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতার ভিত্তিতে- ডিস্ক্রিশনারি এবং নন-ডিস্ক্রিশনারি।

  • ডিস্ক্রিশনারি পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট: ডিস্ক্রিশনারি পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টে একজন পোর্টফোলিও ম্যানেজার তার ক্লায়েন্টের পক্ষে সকল ধরণের আর্থিক ও বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা রাখেন। পোর্টফোলিও ম্যানেজাররা ক্লায়েন্টের আর্থিক চাহিদা এবং ঝুঁকি গ্রহণ করার ক্ষমতা অনুযায়ী বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত গ্রহন করে থাকেন।

  • নন-ডিস্ক্রিশনারি পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট: নন-ডিস্ক্রিশনারি পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টে পোর্টফোলিও ম্যানেজার কেবল ক্লায়েন্টকে বিনিয়োগ সম্পর্কিত পরামর্শ দিতে পারেন তবে ক্লায়েন্ট তার নিজের বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত নেওয়ার সম্পূর্ণ অধিকার রাখেন। পোর্টফোলিও ম্যানেজারের পরামর্শ গ্রহণ করা বা না করা সম্পূর্ণভাবে বিনিয়োগকারীর উপর নির্ভর করে। তবে এই ক্ষেত্রে কোন সিদ্ধান্ত নেয়ার পূর্বে ম্যানেজারের পরামর্শকে সঠিকভাবে বিশ্লেষণ করে নেওয়া উচিত।

পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টের উপায়

বিনিয়োগের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করার জন্য বেশ কিছু কৌশল গ্রহন করা জরুরী যার দ্বারা বিনিয়োগকারীরা তাদের আয় বৃদ্ধি এবং ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে। সাধারণত পেশাদার ব্যবস্থাপক ও বিনিয়োগকারীরা তাদের পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টে নিম্নলিখিত উপায়গুলো ব্যবহার করে থাকেন:

  • সম্পদ বরাদ্দকরণ (Asset allocation): বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগযোগ্য অর্থ ঝুঁকিপূর্ণ এবং ঝুঁকিমুক্ত উভয় ধরণের সম্পদে এমনভাবে অর্থ বরাদ্দ করতে হবে যাতে ন্যূনতম ঝুঁকিতে অধিক মুনাফা অর্জন করা যায়। আর্থিক বিশেষজ্ঞদের মতে বিনিয়োগকারীর লক্ষ্য এবং ঝুঁকি সহনশীলতা অনুযায়ী সম্পদ বরাদ্দ করা জরুরী। অধিক ঝুঁকি সহনশীল বিনিয়োগকারীরা তাদের পোর্টফোলিওতে ঝুঁকিপূর্ণ সম্পদ যেমন- গ্রোথ স্টক ইত্যাদিতে অধিক অনুপাতে বিনিয়োগ করেন। অন্যদিকে রক্ষণশীল বিনিয়োগকারীরা তাদের পোর্টফোলিওতে বন্ড এবং ব্লু-চিপ স্টকের মতো স্থিতিশীল বিনিয়োগের দিকে বেশি গুরুত্ব দেন।

  • বৈচিত্রকরণ (Diversification): বিনিয়োগের ঝুঁকি হ্রাস করার জন্য পোর্টফোলিওর বৈচিত্রকরণ খুব গুরুত্বপুর্ণ। এর মাধ্যমে একজন বিনিয়োগকারী তার পোর্টফোলিওকে বিভিন্ন ধরনের বিনিয়োগযোগ্য সম্পদ দ্বারা বৈচিত্র্যপূর্ণ করতে পারে। যেহেতু কোন সম্পদ শ্রেণী বা সেক্টর অন্যটিকে ছাড়িয়ে যেতে পারে তা আগে থেকে জানা কঠিন, তাই পোর্টফোলিও বৈচিত্র্যকরণ বিনিয়োগের যাবতীয় ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে এবং সময়ের সাথে সাথে ঝুঁকি-সামঞ্জস্যপূর্ণ মুনাফা অর্জনে সহায়তা করে।
  • পুনঃব্যালেন্সিং (Rebalancing): বিনিয়োগ থেকে সর্বোচ্চ মুনাফা অর্জন করার জন্য বিনিয়োগকারীদের তাদের পোর্টফোলিওর উপাদানগুলোর অনুপাতের ভারসাম্য বজায় রাখা জরুরী। আর্থিক বিশেষজ্ঞরাও একটি বিনিয়োগ পোর্টফোলিওকে প্রচলিত বাজার এবং বিনিয়োগের লক্ষ্যের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ রাখার জন্য নিয়মিতভাবে পুনঃব্যালেন্স করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। সময়ের সাথে সাথে বাজারের ওঠানামার কারণে একটি পোর্টফোলিওর মিশ্রণ তার টার্গেট অনুপাত থেকে সরে যেতে পারে। সময়পযোগী পোর্টফোলিও পুনঃব্যালেন্সিং একজন বিনিয়োগকারীকে তার ঝুঁকি ও রিটার্ন প্রোফাইলের সাথে বিনিয়োগ কৌশলকে সামঞ্জস্য রেখে মুনাফা অর্জন করতে সহায়তা করে।

বিনিয়োগকারীদের আয়, বয়স এবং ঝুঁকি গ্রহণের ক্ষমতার সাথে মিল রেখে সেরা বিনিয়োগ পরিকল্পনা তৈরি করতে একটি কার্যকর পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট অপরিহার্য। দক্ষ পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্টের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা কার্যকরভাবে তাদের ঝুঁকি কমাতে পারে এবং তাদের বিনিয়োগ-ভিত্তিক সমস্যার বিরুদ্ধে কাস্টমাইজড সমাধান পেতে পারে। অতএব একটি কার্যকর পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট বিনিয়োগের উদ্যোগ গ্রহণের একটি অন্যতম অন্তর্নিহিত অংশ।

  • No Comments
  • June 12, 2022

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *