অনলাইনে বিও হিসাব খোলা নিয়ে অনেকের মনেই থাকে নানান প্রশ্ন।  শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে নিজের পথ চলা শুরু সবচেয়ে প্রথম ধাপটি হলো একটি বিও হিসাব খোলা।  অনলাইনে বিও হিসাব খোলার সুবিধা বিনিয়োগ করা কে সহজ করে দিয়েছে।  এখন আর কষ্ট করে নানান ঝামেলা পেরিয়ে বিও হিসাব খুলতে হয় না।  আপনি ঘরে বসেই আপনার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে খুলে ফেলতে পারেন আপনার বিও অ্যাকাউন্ট।  তবে কিভাবে অনলাইনে সহজে বিও অ্যাকাউন্ট খোলা যায় এটা হয়তো অনেকেরই জানা নেই।  তাই আজকের লেখায় আমরা  তুলে ধরতে চাই  অনলাইন বিও অ্যাকাউন্ট তৈরির step-by-step  গাইড।  এখানে আমরা কিভাবে রয়্যাল ক্যাপিটাল লিমিটেড এর মাধ্যমে অনলাইনে বিও হিসাব খোলার কাজ করে থাকি তা তুলে ধরব।  কারণ আমাদের  প্লাটফর্মে অ্যাকাউন্ট খোলা সবচেয়ে সহজ এবং সবচেয়ে কম সময় প্রয়োজন।

বিস্তারিত জানার আগে আমাদের মনে রাখা প্রয়োজন একটি বিও অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য কি কি শর্তাবলী মাথায় রাখতে হবে।

 সাবালকঃ  যিনি বিও অ্যাকাউন্ট  অ্যাকাউন্ট খুলতে চান তাকে  অবশ্যই সাবালক হতে হবে।   নাবালক অবস্থায় যেমন কেউ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে না, তেমনি  বিও হিসাব খুলতে হলে তাকে সাবালক হতে হবে।

ব্যাংক হিসাবঃ   বিও অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য আগ্রহী ব্যক্তিকে অবশ্যই তার নিজের নামে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।  ব্যাংক  অ্যাকাউন্ট ছাড়া কোনভাবেই বিও হিসাব খোলা সম্ভব নয়।  যে  কোন ব্যাংক থেকে আপনি আপনার ব্যাংক  হিসাব খুলে  নিতে পারেন।  প্রত্যেকটি অ্যাকাউন্ট এর সাথে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জড়িত থাকে সুতরাং বিও হিসাব খোলার আগে অবশ্যই নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে ফেলতে হবে।

ডকুমেন্টঃ  বিও হিসাব খুলতে কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন এ ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করব কিন্তু প্রথমেই বলে রাখা প্রয়োজন যে জাতীয় পরিচয় পত্র, পাসপোর্ট বা ড্রাইভিং লাইসেন্স এর যেকোনো একটা থাকা অত্যন্ত প্রয়োজন। এছাড়া বিও হিসাব খোলার জন্যে অগ্রসর হওয়া সম্ভবপর নয়।

এ সকল মৌলিক বিষয়গুলো নিশ্চিত হয়ে থাকলে আপনি বিও অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য অগ্রসর হতে পারেন।  আমাদের মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য মাত্র চারটি ধাপ পার করতে হবে।  এই  ধাপগুলো পার করার মাধ্যমে আপনি খুলে ফেলতে পারবেন আপনার বিও অ্যাকাউন্ট।

আসুন জেনে নেই বিস্তারিত।

 ১ম ধাপ – রেজিস্ট্রেশন প্যানেল

রেজিস্ট্রেশন প্যানেল অনলাইনে বিও অ্যাকাউন্ট খোলার প্রথম ধাপ। এই ধাপে নিচের প্রক্রিয়াগুলো সম্পন্ন করতে হবেঃ

  • Open an Account এ ক্লিক করুন
  • এর পরে একটি রেজিস্ট্রেশন প্যানেল স্ক্রিনে দেখাবে
  • সেখানে আপনার ফার্স্ট নেইম এবং লাস্ট নেইম লিখুন। তবে নাম অবশ্যই জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট বা ড্রাইভিং লাইসেন্স এর অনুরূপ হতে হবে
  • আপনার একটি ভ্যালিড  ইমেইল এড্রেস লিখতে হবে
  • আপনার মোবাইল নম্বরটি দিতে হবে
  • এবং এর পরে continue to registration button বাটন এ ক্লিক করুন
  • আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস এ রেজিস্ট্রেশন সাকসেসফুল হয়েছে কিনা তা জানিয়ে একটি ইমেইল চলে যাবে
  • সেই ইমেইল থেকে প্রাপ্ত user id and password  ব্যবহার করে আপনি অনলাইনে বিও অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন এর প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে পারবেন।

তবে এটা মনে রাখা প্রয়োজন যে রেজিস্ট্রেশন শেষ হওয়া মানে বিও অ্যাকাউন্ট তৈরি হয়ে গেছে ঠিক তেমনটা নয়।  রেজিস্ট্রেশন হচ্ছে আপনার অ্যাকাউন্ট খোলার সর্বপ্রথম ধাপ। আসুন দেখে নেই এর পরের ধাপ গুলো কেমন। একবার রেজিস্ট্রেশন হয়ে গেলে আপনি যেকোনো সময় বাকি ধাপগুলো সম্পন্ন করতে পারবেন।

২য় ধাপ – অনলাইন বিও ফর্ম

রেজিস্ট্রেশনের ধাপ  সম্পন্ন হলে এর পরবর্তী ধাপে অনলাইনে বিও ফর্ম পূরণ করতে হবে। এই বিও ফর্মে বিও অ্যাকাউন্ট খোলার জন্যে আগ্রহী ব্যক্তির সকল তথ্য প্রদান করতে হবে। আসুন দেখে নেই অনলাইন বিও ফর্মে কি কি প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করতে হবে।

  • আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ ইন করলে আপনি একটি অনলাইন বিও অ্যাকাউন্ট ফর্ম দেখতে পাবেন
  •  ফরমটিতে আপনাকে নিম্নের তথ্যগুলি প্রদান করতে হবে
  •  সর্বপ্রথমেই আপনাকে নির্ধারণ করতে হবে আপনার বিও অ্যাকাউন্ট কি জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট হবে নাকি ইন্ডিভিজুয়াল অ্যাকাউন্ট হবে
  •  ক্যাটাগরি সিলেক্ট করার পর আপনাকে নিম্নের তথ্যগুলো প্রদান করতে হবে।  যার মধ্যে  অ্যাকাউন্ট হোল্ডার এর যাবতীয় বিস্তারিত, জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট হোল্ডার এর বিস্তারিত, এবং নমিনি এর বিস্তারিত তথ্য
  •  তবে উল্লেখ করা প্রয়োজন যে, নমিনি এর বিস্তারিত তথ্য প্রদান করা বাধ্যতামূলক নয়
  •  তবে হ্যাঁ, নমিনি নাবালক হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে গার্ডিয়ানের তথ্য প্রদান করতে হবে
  •  আপনি সর্বোচ্চ 2 জন নমিনি এর তথ্য প্রদান করতে পারবেন
  •  তথ্য প্রদান করা হয়ে গেলে  save and continue বাটনে ক্লিক পরবর্তী ধাপে অগ্রসর হতে হবে।

এই ধাপ শেষ হলে পরের ধাপে বিও হিসাব খোলার জন্যে যে সকল ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে তা সংযুক্ত করতে হবে।

৩য় ধাপ – সংযুক্তি প্যানেল

  • উপরের ধাপগুলো সম্পূর্ণ করার পর Attachment panel আসবে
  • এই ধাপে ক্লায়েন্টের সম্প্রতি তোলা ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের স্ক্যান কপি অথবা পাসপোর্ট বা ড্রাইভিং লাইসেন্সের স্ক্যান কপি আপলোড করতে হবে
  • এখানে মনে রাখা প্রয়োজন যে স্ক্যান কপিগুলো অবশ্যই Jpg/Jpeg ফরম্যাট হতে হবে এবং সাইজ 300kb এর বেশি যেন না হয়
  •  একই সাথে অ্যাকাউন্ট হোল্ডার এবং নমিনি এর ব্যাংকের তথ্য প্রদান করতে হবে
  •  নমিনি এর সম্প্রতি তোলা  ছবি,  জাতীয় পরিচয় পত্র বা ড্রাইভিং লাইসেন্স বা পাসপোর্ট এর স্ক্যান কপি আপলোড করতে হবে
  •  অ্যাকাউন্ট হোল্ডার এর ভ্যালিড সিগনেচার এর স্ক্যান কপি আপলোড করতে হবে
  •  এবং এরপর save and continue বাটনে ক্লিক করে প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে

সংযুক্তি প্যানেল এ সকল প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট আপলোড করার পর নিয়ে যাওয়া হবে পেমেন্ট পরিশোধের ধাপে।

৪র্থ ধাপ – পেমেন্ট

আমাদের মাধ্যমে বিও অ্যাকাউন্ট খোলার পদ্ধতি অনেক সহজ যে কারণে ক্লায়েন্টদের পেমেন্ট করার পদ্ধতিও আমরা অনেক সহজ করে দিয়েছি। আসুন জেনে নেই কিভাবে অনলাইনে বিও হিসাব খোলার জন্য পেমেন্ট করবেন।

  • যেহেতু আমরা SSL পেমেন্ট গেটওয়ে ব্যবহার করি, তাই পেমেন্ট করার অনেকগুলো উপায় আপনাদের জন্য প্রস্তুত আছে। আপনি যেকোনো ধরণের পেমেন্ট মেথড ব্যবহার করে এটি সম্পন্ন করতে পারবেন।
    • মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসঃ বিকাশ, রকেট, নগদ, ইউপে, ডিমানি, এম ক্যাশ, মাই ক্যাশ, এ বি ক্যাশ, টি ক্যাশ, ওকে ওয়ালেট, সিউর ক্যাশ মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস ব্যবহার করে আপনি পেমেন্ট পরিশোধ করতে পারবেন একদম নিমিষেই।
    • ইন্টারনেট ব্যাংকিংঃ এবি ব্যাংক, ইসলামি ব্যাংক, সিটি টাচ, এম টি বি, ব্যাংক এশিয়া, ট্যাপ এন পে, আই পে ব্যবহার করেও অনলাইন বিও অ্যাকাউন্টের পেমেন্ট প্রদান করতে পারবেন।
    • কার্ড সার্ভিসঃ এছাড়াও ডমেস্টিক ভিসা কার্ড, মাস্টার কার্ড, নেক্সাস ডেবিট কার্ড এবং ক্রেডিট কার্ড এর মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার বিও হিসাবের পেমেন্ট পরিশোধ করতে পারবেন।

উপরের মাধ্যমগুলো ব্যবহার করে খুব সহজেই আপনি আপনার পেমেন্ট  সম্পন্ন করতে পারবেন।  পেমেন্ট সম্পন্ন হয়ে যাওয়া মাত্র আপনার বিও অ্যাকাউন্ট এর যাবতীয় প্রক্রিয়া শেষ হবে এবং পরবর্তী নির্দেশের জন্য আপনি অপেক্ষা করবেন।  আমরা 24  ঘন্টা কম সময়ে  বিও অ্যাকাউন্ট খোলার সার্ভিস সম্পূর্ণ করে থাকি। জমা দেয়া ডকুমেন্টগুলো চেক এবং ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে ক্লায়েন্ট এস এম এস এর মাধ্যমে একটি নোটিফিকেশন পাবে যেখানে তার বিও আইডি এবং ক্লায়েন্ট কোড এর উল্লেখ থাকবে।

অ্যাকাউন্ট তৈরি হয়ে যাওয়া মাত্র আপনি শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করে আপনার যাত্রা শুরু করতে পারবেন। অনলাইনে বিও হিসাব খোলার সুবিধা হচ্ছে আপনি খুব সহজেই একজন ইনভেস্টর হিসেবে  শেয়ারবাজারের নেমে যেতে পারেন।  ডিজিটাল  যুগে আমাদের সকলের উচিত সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে সহজ পদ্ধতিগুলো  মেনে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া।

উপরের এই পদ্ধতিগুলোর মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি ঘরে বসে অনলাইনে বিও অ্যাকাউন্ট খুলে ফেলতে পারেন।  আশা করি আমাদের step-by-step গাইডটি  আপনাদের উপকারে আসবে এবং আপনারা অচিরেই অনলাইনে বিও হিসাব খোলার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করবেন।